রাষ্ট্রীয় জ্ঞান আয়োগ
ভারত সরকার
  


  নিউ
ইন্ডিয়া এনার্জি পোর্টালের
ইন্ডিয়া ওয়াটার পোর্টাল
নিউ সংস্তুতি ও সুপারিশ

  ভাষা
  English
  हिन्दी
  മലയാളം
  অসমীয়া
  ಕನ್ನಡ
  ارد و
  தமிழ்
  नेपाली
  মণিপুরী
  ଓଡ଼ିଆ
  ગુજરાતી
বিষয় বিন্দু | নেটওয়ার্কিং বা অন্তর্সম্বন্ধ স্থাপন

১. জ্ঞানের নেটওয়ার্ক

দেশে যথেষ্ট পরিমাণ উচ্চমানের প্রশিক্ষিত কর্মীদল গড়ে তুলতে শিক্ষার ক্ষেত্রে ব্যাপক ব্যবস্থা ও লগ্নি করা একান্ত দরকার৷ দেশে যথেষ্ট সংখ্যক ভালো শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এবং তাদের উপযুক্ত গবেষণার সুযোগ সুবিধা সৃষ্টির বিষয়ে কোনো আপোষ না করেও বলা যায় যে এই প্রতিস্পর্ধায় সফল হওয়ার একটি উপায় হলো দেশের সীমিত সংখ্যক শ্রেষ্ঠমানের গবেষণা কেন্দ্রে যে শিক্ষা সংক্রান্ত যন্ত্রপাতি, বইপত্র ও সুযোগ সুবিধা রয়েছে সেগুলিকে দেশের বিশাল সংখ্যক বিশ্ববিদ্যালয়গুলি ও কারিগরি শিক্ষা, কৃষিশিক্ষা ও চিকিত্সাশাস্ত্র বিষয়ক সংস্থাগুলির সঙ্গে ভাগ করে নেওয়া৷ এছাড়া জ্ঞানের বিভিন্ন বিষয়ে আজ সারা পৃথিবী জুড়েই গবেষণা ও প্রয়োগের ক্ষেত্রে একাধিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এবং এমনকি একাধিক দেশের মধ্যে পারস্পরিক সহযোগিতার মাধ্যমে প্রগতি হচ্ছে -- এমনটাই দেখা যাচ্ছে৷ বিশেষ করে যেসব গবেষণার বিষয়ে যন্ত্রগাণিতিক বা পরিসংখ্যানের নিরিখে গহন স্তরে যাওয়া দরকার, সেইসব ক্ষেত্রে এই পদ্ধতি একান্তই জরুরী হয়ে পড়ছে৷ এই প্রক্রিয়ার তিনটি মুখ্য দিক হলো -- পারস্পরিক আলোচনা, পরিসংখ্যান আদান-প্রদান করা এবং গবেষণার সুবিধাগুলি ভাগ করে নেওয়া৷ অতএব ভারতীয় গবেষকেরা যাতে কম খরচে পারস্পরিক সহযোগিতার মাধ্যমে এভাবে গবেষণাক্ষেত্রে এগোতে পারেন, এমন সুযোগ সুবিধা তৈরী করতে হবে৷ ৮০ দশক থেকেই ইউরোপে গবেষণা ও প্রয়োগের সুবিধা ও পরিসংখ্যানগুলির ক্ষেত্রে পারস্পরিক সহায়তার পদ্ধতি সফলভাবে চলে এসেছে -- যা বহু দেশ গ্রহণও করেছে এবং ভারতেও এই মডেল উপযুক্ত হবে বলে মনে করা হচ্ছে৷

এই প্রসঙ্গে রাষ্ট্রীয় জ্ঞান আয়োগ সমস্ত বিশ্ববিদ্যালয়গুলি, গবেষণা সংস্থা ও প্রয়োগশালাগুলি, বিজ্ঞান ও কারিগরি সংস্থাগুলি, চিকিত্সা সুবিধা সংস্থাদি কৃষি-গবেষণা, বিস্তার-শিক্ষাকেন্দ্র এবং পাঠাগারগুলির মধ্যে সম্ভবতঃ কয়েক হাজার শাখা-প্রশাখাদির নেটওয়ার্ক তৈরি করার বিষয়ে একটি পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে যাতে ১০০ Mbps গতির একটি নেটওয়ার্কের সংকল্পনা রয়েছে৷ এ বিষয়ে আয়োগের তরফে একজন বহির্গত বিশেষজ্ঞ রূপে ডঃ ডি.পি.এস. শেঠ একটি শ্বেতপত্র তৈরী করেছেন যাতে এ বিষয়ে অবধারণা ও কর্মপদ্ধতির সম্যক বর্ণনা রয়েছে৷ এইক্ষেত্রে যাঁদের দায়বদ্ধতা রয়েছে তাঁদের মতামত এবং আলোচনার জন্য এখন রিপোর্টটি ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে দেওয়া হয়েছে যাতে এইসব অভিমতে সমৃদ্ধ হয়ে রিপোর্টটি জ্ঞান আয়োগের সুপারিশ হিসেবে যেতে পারে৷

২. স্বাস্থ্য সংক্রান্ত তথ্যের নেটওয়ার্ক

ভারতে স্বাস্থ্য-পরিষেবাকে উন্নততরমানের করতে হলে একটি বিশ্বাসযোগ্য, দ্রুতগতি, হালফিল সময়ের উপযোগী স্বাস্থ্য-বিষয়ক তথ্য আহরণ প্রণালী তৈরী করতে হবে৷ এছাড়া দেশে পৃথক পৃথক স্বাস্থ্য পরিষেবা সংস্থা গড়ে উঠতে থাকলে স্বাস্থ্য বিষয়ক তথ্য আহরণ ও তার প্রচারের ক্ষেত্রে একটা মানগত বিষমতা দেখা দিতে পারে; যার পরিণাম স্বরূপ স্বাস্থ্য পরিষেবা হয়ে পড়বে খুব খরচসাপেক্ষ কারণ সংস্থায় সংস্থায় কিছুই সমতুল্য হবে না৷ ফলে এইসব এবং অন্যান্য সমস্যার সমাধানের ক্ষেত্রে স্বাস্থ্য-নেটওয়ার্ককে সচেতন ও প্রাগ্রসর করা জরুরী যাতে আজকের বিশ্বে একটা পরিণত স্বাস্থ্য পরিষেবা তৈরী করতে গেলে যে সব সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়, সেগুলির সমাধান সম্ভব৷

একথা বুঝতে পেরে রাষ্ট্রীয় জ্ঞান আয়োগ, স্বাস্থ্য তথ্য, নেটওয়ার্কের ক্ষেত্রে একটি কার্যগোষ্ঠী তৈরী করেছেন এ বিষয়ের কিছু বিশেষজ্ঞদের নিয়ে৷ এই কার্যদল এখন বিভিন্ন পর্যায়ে বিস্তারিত আলোচনা করছেন এবং এঁরা এজন্য প্রয়োজনীয় তথ্য-প্রযুক্তিগত মান এবং নিদানিক বা ক্লিনিকাল মান বিষয়ক সমস্যা এবং জাতীয় স্তরে এই পরিষেবাকে সার্থকতর করে তোলার জন্য যে নিয়ামক-নিয়ন্ত্রক সংস্থা তৈরী করতে হবে, সেই সমস্যা ছাড়াও ইন্টারনেট নির্ভর, নির্ভুল ইলেকট্রনিক স্বাস্থ্য তথ্য কেন্দ্রের কর্মপ্রণালী নির্মাণ বিষয়ক সমস্যা নিয়েও আলোচনা করছেন৷ ২১শে আগষ্ট, ২০০১ সালে এই কার্যদলের প্রথম আলোচনা সভা আয়োজিত হয়েছিল৷


More Networks links: সংস্তুতিগুলি     বিচার-বিমর্শ